• বুধবার     ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮  

      ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ঢাকা

    সফলতা ও উন্নয়নে দরকার সঠিক তথ্য

    বি আওয়ার ফ্রেন্ডস

    পড়ালেখার জন্য শহর থেকে গ্রামে

    শিক্ষার্থীদের সিলেট শহর থেকে ক্যাম্পাসে পৌঁছে দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের আছে নিজস্ব বাস। ছবি: আবু তালহা চৌধুরী

    লিডিং ইউনিভার্সিটি, সিলেট

    পড়ালেখার জন্য শহর থেকে গ্রামে

    মিসবাহ্ উদ্দিন | ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ২:৩৫ অপরাহ্ণ

    শিশু শ্রেণি থেকে উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত তানজিন সুন্নি পড়ালেখা করেছেন সিলেট শহরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। পড়াশোনার জন্য তাঁকে কখনোই শহরের বাইরে যেতে হয়নি। নতুন অভিজ্ঞতা যোগ হয়েছে সিলেটের লিডিং ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল (সিএসই) বিভাগে ভর্তি হওয়ার পর। তানজিনের মতো এ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় পাঁচ হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়মিতই উচ্চশিক্ষার জন্য গ্রামে যেতে হয়!

    এ বছর এপ্রিল মাস থেকে লিডিং ইউনিভার্সিটির সব শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম সিলেট শহরের উপকণ্ঠের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার রাগীবনগরে স্থানান্তর করা হয়েছে। এর আগে শহরের মধুবন, রংমহল টাওয়ার ও সুরমা টাওয়ারে এই কার্যক্রম চলছিল। প্রায় সব ছাত্রছাত্রী তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব বাসে চড়ে শহর থেকে ক্যাম্পাসে যান। গ্রামীণ প্রকৃতি ও পরিবেশ দেখতে দেখতে প্রায় ৪০ মিনিটের যাত্রা বেশ উপভোগ করেন শিক্ষার্থীরা। গত সোম ও মঙ্গলবার আমরাও এই বাসের যাত্রী হলাম। গাইড হিসেবে সঙ্গে ছিলেন প্রথম বর্ষের তানজিন।

    ২০০১ সালে সিলেটে এই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন শিল্পপতি সৈয়দ রাগীব আলী। বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার মো. কাওছার হাওলাদার জানান, বর্তমানে এখানে চারটি অনুষদের অধীনে ১০টি বিভাগে শিক্ষা কার্যক্রম চলছে।

    প্রোগ্রামিংয়ে এগিয়ে

    কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল (সিএসই) বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, প্রোগ্রামিংয়ে বেশ ভালো করছেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গত মাসে অনুষ্ঠিত হলো এসিএম জাতীয় কলেজিয়েট প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। সেখানে শীর্ষ দশে স্থান করে নিয়েছে লিডিং ইউনিভার্সিটি। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির (আইইউটি) পরই ছিল তাদের অবস্থান। এর আগে ২০১৭ সালে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি দল নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়।

    ছাত্রদের পাশাপাশি ছাত্রীরাও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় সামনের সারিতে আছেন। গত বছর ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্টের (এনজিপিসি) শীর্ষ দশে ছিল সিএসই বিভাগের একটি দল। বিভাগটির ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘প্রোগ্রামিং কনটেস্টে অংশগ্রহণের সম্পূর্ণ ব্যয় বহনসহ বিভিন্নভাবে আমরা ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহিত করি। দক্ষ প্রোগ্রামার ক্যাম্পাসে আসেন, বিভিন্ন কর্মশালা পরিচালনা করেন। এ ছাড়া অন্তবিশ্ববিদ্যালয় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় নিয়মিত।’

  • আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০৩১  
    শিক্ষাব্যবস্থায় সিঙ্গাপুরে নীরব বিপ্লব
    শিক্ষাব্যবস্থায় সিঙ্গাপুরে নীরব বিপ্লব