• লেইটেস্ট

    কামিং সুন

    রবিবার     ১৭ নভেম্বর, ২০১৯  

    সফলতা ও উন্নয়নে দরকার সঠিক তথ্য

    বি আওয়ার ফ্রেন্ডস

    উন্নয়ন প্রকল্পে কথিত দুর্নীতি নিয়ে জাবির অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের বিবৃতি

    জাবির কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। ছবি : সংগৃহীত

    উন্নয়ন প্রকল্পে কথিত দুর্নীতি নিয়ে জাবির অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের বিবৃতি

    প্লানেট ডেস্ক | ২২ অক্টোবর ২০১৯ | ৮:৫১ অপরাহ্ণ

    ঢাকা কলেজের শিক্ষক লাউঞ্জে সম্প্রতি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী কমিটির এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আগামী ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য মিলনমেলাসহ সংগঠনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। সেইসঙ্গে জাবিতে ১৪৪৫ কোটি টাকা উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করার প্রক্রিয়ায় অস্বচ্ছতা, ত্রুটিপূর্ণ পরিকল্পনা, প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গঠনে স্বজনপ্রীতি, আর্থিক দুর্নীতির সঙ্গে উপাচার্য ও তার পরিবারের সম্পৃক্ততার বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।
    কার্যকরী পরিষদের উপস্থিত সদস্যরা মত প্রকাশ করেন যে

    এক. এই প্রকল্পের প্রস্তাব দান ও বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া সম্পর্কে কোনো পর্যায়ে সিন্ডিকেট ও সিনেট সভায় উপস্থাপন করে মতামত গ্রহণ করা বা অনুমোদন নেয়া হয়নি।
    দুই. বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে মাস্টার প্ল্যান করা হয়নি, প্রয়োজনীয় বিশেষজ্ঞ রাখা হয়নি এবং মাস্টার প্ল্যান করার সবগুলো ধাপ অনুসরণ ও বিবেচ্য বিষয় বিবেচনা করা হয়নি।
    তিন. উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়েই উপাচার্য তার ব্যক্তিগত সচিবসহ অনুগত ও অদক্ষ ব্যক্তিবর্গকে দিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করেন।
    চার. অনুগত ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে উপাচার্য অস্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় আরকিটেক্ট ও ঠিকাদার ফার্ম নির্বাচন করেন।
    পাঁচ. হলগুলোর নকশা সম্পন্ন না করে এবং নকশা কমিটিকে না দেখিয়েই টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। ই-টেন্ডার না করে গতানুগতিক টেন্ডার প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয় এবং টেন্ডার ছিনতাইয়ের লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।
    ছয়. সর্বোপরি আর্থিক দুর্নীতির সঙ্গে উপাচার্য ও তার পরিবারের সম্পৃক্ততার পত্রিকায় প্রকাশিত ইতিহাসের বিরল খবর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তিকে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে।

    সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত:

    এক. ১৪৪৫ কোটি টাকা উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ায় অস্বচ্ছতা ও দুর্নীতির অভিযোগের কারণে সৃষ্ট ক্যাম্পাসে বিরাজমান অচলাবস্থার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই এসোসিয়শনের কার্যনির্বাহী কমিটি গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে।
    দুই. আর্থিক দুর্নীতির সঙ্গে উপাচার্য ও তার পরিবারের সম্পৃক্ততার অভিযোগের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং ’উপাচার্য’ শব্দটি গালাগালে রূপান্তরিত হয়েছে। অ্যালামনাই এসোসিয়শনের কার্যনির্বাহী কমিটি বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে সত্য উদ্ঘাটনের জোর দাবি জানাচ্ছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

    Comments

    comments

    ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ২০ জানুয়ারি ২০১৮

  • আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০  
    ডায়মন্ড আজাদের জাতীয় কৃতিত্ব
    ডায়মন্ড আজাদের জাতীয় কৃতিত্ব