• লেইটেস্ট

    কামিং সুন

    বৃহস্পতিবার     ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯  

    সফলতা ও উন্নয়নে দরকার সঠিক তথ্য

    বি আওয়ার ফ্রেন্ডস

    মানারাত ইউনিভার্সিটিতে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ ২০১৯ অনুষ্ঠিত

    ফুটবল প্রতিযোগিতায় বিজয়ী টিমের হাতে ট্রফি তুলে দিচ্ছেন উপাচার্য হাফিজুল ইসলাম মিয়া। ছবি-ক্যাম্পাস প্লানেট

    মানারাত ইউনিভার্সিটিতে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ ২০১৯ অনুষ্ঠিত

    প্লানেট ডেস্ক | ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ১২:৩০ অপরাহ্ণ

    বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেষ হলো মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ-২০১৯। আশুলিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের খেলার মাঠে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ১২ নভেম্বর দুই দিনব্যাপী এ আয়োজন শেষ হয়। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার ও ভারপ্রাপ্ত ভিসি হাফিজুল ইসলাম মিয়া।

    অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির ডিন প্রফেসর ড. এম. কোরবান আলী, জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিস বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. এম. জাহানগীর কবির, ফার্মেসি বিভাগের প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক ড. নার্গিস সুলতানা চৌধুরী, আইন বিভাগের প্রধান জিয়াউর রহমান মুন্সি, স্থায়ী ক্যাম্পাসের স্পোর্টস ক্লাবের মডারেটর ও ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাঈদ ইসলাম, আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও স্পোর্টস ক্লাবের মডারেটর আবদুল্লাহ হিল গনি, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (ইনচার্জ) আলমগীর হোসেইন, আইন বিভাগের লেকচারার ও সহকারী মডারেটর হোসনে আরা, ইইই বিভাগের লেকচারার ও কালচারাল ক্লাবের সহকারী মডারেটর রফিকুল ইসলাম, জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিস বিভাগের লেকচারার এবং কালচারাল ও স্পোর্টস ক্লাবের সহকারী মডারেটর রেহানা সুলতানা, স্পোর্টস ক্লাবের সহকারী মডারেটর ও জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিস বিভাগের লেকচারার মো. বোরহান উদ্দীন প্রমুখ।

    অনুষ্ঠানে ভিসি হাফিজুল ইসলাম মিয়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, মানারাত ইউনিভার্সিটি পড়াশোনার পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রীদের মেধা বিকাশে এক্সট্রা কারিকুলার অ্যাক্টিভিটিসের প্রতি সব সময় গুরুত্ব দিয়ে আসছে। এরই অংশ হিসেবে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ-২০১৯ আয়োজন করা হয়েছে।

    ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ উপলক্ষে রং-বেরংয়ের পতাকা ও বেলুনে সাজানো হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলার মাঠ। ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ছিল বিভিন্ন খেলাধুলায় অংশগ্রহণের সুযোগ। এসব খেলার মধ্যে ছিল ছাত্রদের জন্য ফুটবল টুর্নামেন্ট, মোরগ লড়াই, বেলুন ফুটানো, বল নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা। আর ছাত্রীদের জন্য আয়োজন করা হয় কেরম খেলা, বেলুন ফুটানো, বালিশ পাসিং, হারি ভাঙ্গা, বল বাস্কেটিং ও চেয়ারে বসা প্রতিযোগিতা। ছাত্রদের নিয়ে আয়োজন করা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে তেসলা ফিউশনকে ২-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় এলএফসি দল। এছাড়া শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিয়ে আয়োজন করা হয় প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, বাস্কেটিং, বেলুন ফুটানোসহ নানান প্রতিযোগিতার।

    Comments

    comments

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

    ২০ জানুয়ারি ২০১৮

  • আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১  
    ডায়মন্ড আজাদের জাতীয় কৃতিত্ব
    ডায়মন্ড আজাদের জাতীয় কৃতিত্ব